এ বছর আট শতাধিক শিক্ষার্থীকে বৃত্তি দিয়েছে শেভরন

শেভরন বাংলাদেশের জালালাবাদ, মৌলভীবাজার ও বিবিয়ানা গ্যাস ফিল্ডের কাছাকাছি ২৪টি স্কুলের ৮২৩ জন ছাত্রছাত্রীকে শেভরন এবছর বৃত্তি প্রদান করে। এর মধ্যে প্রায় ৬৪ শতাংশ ছাত্রী।

অর্থনৈতিকভাবে পিছিয়ে পড়া মেধাবী ছাত্রছাত্রীদের নিয়ে শেভরন বাংলাদেশ তার বিবিয়ানা গ্যাস প্লান্টে সম্প্রতি আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে এ তথ্য জানায় প্রতিষ্ঠানটি।

এ বছরের এসএসসি পরীক্ষায় উচ্চতর গ্রেডে উত্তীর্ণ ২০ জন ছাত্রছাত্রীও উক্ত বৃত্তির অন্তর্ভূক্ত ছিল। প্রায় দু-দশক আগে শেভরন বাংলাদেশ অল্পকিছু স্কুল নিয়ে বৃত্তি প্রদান কর্মসূচি চালু করে।

শেভরন থেকে বৃত্তি প্রাপ্ত ছাত্রছাত্রীরা ২০১৯ সালের এসএসসি পরীক্ষায় গড়ে ১০০ ভাগের কাছাকাছি পাশ করে। বাৎসরিক বৃত্তি প্রদান কর্মসূচি ছাড়াও শেভরনের ৩টি গ্যাস ফিল্ড এলাকায় আবস্থিত স্কুলের সামগ্রিক শিক্ষার পরিবেশ উন্নত করার জন্যে শেভরন মানসম্মত শিক্ষা কার্যক্রমকে সহায়তা দিয়ে থাকে।

শিক্ষা বৃত্তি ছাড়াও স্কুলে অতিরিক্ত শিক্ষক নিয়োগ, কম্পিউটার ল্যাব স্থাপন, কোচিং, এন্ডয়মেন্ট তহবিল, স্কুল ইউনিফর্ম, খেলার সামগ্রী, ফার্নিচার, স্বাস্থ্য সম্মত লেট্রিন ও সুপেয় পানি ইত্যাদি সহায়তা দিয়ে থাকে।

শেভরনের এ সহায়তায় স্কুলের সামগ্রিক শিক্ষার পরিবেশ উন্নত হচ্ছে। বাংলাদেশে নিযুক্ত আমেরিকার রাষ্ট্রদূত আর্ল রবার্ট মিলার অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

এ ছাড়া অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, শেভরন বাংলাদেশের প্রেসিডেন্ট নিল মিনগাস, শেভরনের কর্পোরেট এ্যাফেয়ার্স বিভাগের পরিচালক ইসমাইল চৌধুরী, বিবিয়ানা গ্যাস ফিল্ড সুপারিন্টেডেন্ট আশিক রহমান এবং শেভরনের সিনিয়র কর্মকর্তারা। আরও উপস্থিত ছিলেন ছাত্রছাত্রী ও তাদের পিতামাতা/অভিভাবকবৃন্দ।

আমেরিকার রাষ্ট্রদূত বলেন, এখানকার উন্নয়নের মতো স্থানীয় মানুষের উন্নয়নে শেভরনের কর্মসূচি বাংলাদেশের উন্নয়নে অবদান রাখায় যুক্তরাষ্ট্রের সরকার গর্ব করে।

ছাত্রছাত্রীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, তোমাদের মতো যুবকরাই পারে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে। পরিশেষে, তিনি বৃত্তিপ্রাপ্ত ছাত্রছাত্রীদের অভিনন্দন জানান এবং নিজেদেরকে নিজেদের সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে পরামর্শ দেন।

২০০৫ সাল থেকে শেভরন তার গ্যাস ফিল্ড এলাকায় কর্পোরেট সামাজিক দায়বদ্ধতার আলোকে শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও অর্থনৈতিক উন্নয়ন কার্যক্রম বাস্তবায়ন করে যাচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *