বুয়েটে হয়ে গেল ইন-জিনিয়াস অ্যাকটিভেশন পর্ব

স্ট্রাকচারাল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের কাজে উৎসাহ দিতে দেশের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে পুরকৌশল বিভাগে পড়ুয়া তরুণদের জন্য ভিন্নধর্মী এক প্রতিযোগিতার নাম ‘জিপিএইচ ইস্পাত-প্রথম আলো ইন-জিনিয়াস’। আজ মঙ্গলবার দুপুরে রাজধানীতে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) পুরকৌশল বিভাগের লেকচার হলে এই প্রতিযোগিতার অ্যাকটিভেশন পর্বের অনুষ্ঠান হয়।

বুয়েটের পাশাপাশি গাজীপুরের ঢাকা প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়েও প্রতিযোগিতাটির অ্যাকটিভেশন পর্ব অনুষ্ঠিত হয়। জিপিএইচ ইস্পাত ও প্রথম আলো যৌথভাবে এই প্রতিযোগিতার আয়োজন করছে।

প্রথম আলোর সহযোগী সম্পাদক আনিসুল হক বলেন, ‘দেশের প্রতি প্রেম, সভ্যতার প্রতি দায়বদ্ধতা থেকে এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এই প্রতিযোগিতার মাধ্যমে স্ট্রাকচারাল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের ভালো নকশা বেরিয়ে আসবে শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে।’

জিপিএইচ গ্রুপের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম বলেন, ‘আয়তনে বাংলাদেশ ছোট। তবে এর জনসংখ্যা অনেক বেশি। ইদানীং গ্রামেও অনেক ভবন তৈরি হচ্ছে। অথচ কৃষি জমি রক্ষা করা আমাদের প্রয়োজন। পরিকল্পিত উদ্যোগ, নীতিমালার মধ্যে এনে অল্প জায়গায় বেশি মানুষের আবাসনের ব্যবস্থা করতে হবে। শিক্ষার্থীদের এই প্রতিযোগিতার মধ্য দিয়েই কম খরচে অধিক টেকসই আবাসনের বিভিন্ন আইডিয়া উঠে আসবে।’

প্রতিযোগিতা উপলক্ষে বানানো ওয়েবসাইটের এই ঠিকানায় (www.prothomalo.com/engenius) গিয়ে নিবন্ধন করা যাবে।

অনুষ্ঠানে বলা হয়, পুরকৌশল বিভাগের শিক্ষার্থীদের ভৌত স্থাপনার প্রকৌশলচর্চা বিষয়ে সচেতনতা, সক্ষমতা বৃদ্ধি, আন্তর্জাতিক মানের প্রকৌশলীদের গড়ে উঠতে অনুপ্রেরণা দিতে এই প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হচ্ছে। এর উদ্দেশ্য আগামী দিনের ভৌত কাঠামো যেন হয় উন্নত, নান্দনিক এবং একই সঙ্গে মজবুত ও দৃঢ় ভিত্তির ওপর।

যেকোনো বিশ্ববিদ্যালয়ের সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের তৃতীয়, চতুর্থ বর্ষের এবং সদ্য স্নাতক শেষ করা শিক্ষার্থীরা দলীয়ভাবে এই প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে পারবেন। প্রথমে ওয়েবসাইটে গিয়ে নিবন্ধন করতে হবে। পরে প্রতিযোগিতার কয়েক ধাপ পেরিয়ে ৩০টি দল নির্বাচিত হবে। সবশেষে বিজয়ী তিনটি দলকে পুরস্কৃত করা হবে। শীর্ষ দলটি নগদ পুরস্কারের পাশাপাশি বিশ্বের একটি আধুনিক নগরীতে শিক্ষাসফরের সুযোগ পাবে।

এ বছরের জানুয়ারি মাসে প্রথম আলো ও জিপিএইচ ইস্পাত সমঝোতা চুক্তি স্বাক্ষর করে। বুয়েটসহ বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের পুরকৌশল বিভাগের ১১ জন শিক্ষক ও বিশেষজ্ঞ এই প্রতিযোগিতায় নির্বাচক হিসেবে থাকছেন।

অনুষ্ঠানে প্রথম আলোর ২০ বছর পূর্তি উপলক্ষে নির্মিত ‘আলোর পথযাত্রী’ ও জিপিএইচ ইস্পাতের দুটি তথ্যচিত্র প্রদর্শন করা হয়। বুয়েট-জাপান ইনস্টিটিউট অব ডিজাস্টার প্রিভেনশন অ্যান্ড আরবান সেফটির (বুয়েট-জেআইডিপিইউএস) পরিচালক রাকিব আহসান অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন। অনুষ্ঠানে জিপিএইচ ইস্পাতের চেয়ারম্যান আলমগীর কবির উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *